Freedom fighters those who never received the recognition of an independent state

Indian independence struggle was only possible because the support group of a very zealous freedom fighter was in support of our top leaders. , But those who worked hard behind the scenes never received the recognition of an independent state. So, here are some of the heroes who were the main character behind the independence movement.

ভারতীয় স্বাধীনতা সংগ্রাম কেবলমাত্র সম্ভব হয়েছিল কারণ একটি অত্যন্ত উৎসাহী মুক্তিযোদ্ধাদের সমর্থক দল আমাদের প্রথম সারির নেতাদের সমর্থনে ছিল । ,কিন্তু যারা দৃশ্যের পিছনে কঠোর পরিশ্রম করেছিল তারা কখনোই স্বাধীন রাষ্ট্রের স্বীকৃতি লাভ করেনি । সুতরাং, এখানে কিছু নায়কদের দেখুন যারা স্বাধীনতা আন্দোলনের পিছনে মূল চরিত্র ছিল ।

Svarkar was a great orator, prolific writer, historian, poet, philosopher and social worker who founded the “Abhinav Bharat Society”. He was also involved in the Swadeshi Movement and wrote a book titled “The Indian War Of Independence 1857”. He was imprisoned in Andaman Cellular Jail when he tried to escape from London via Marseilles. 

বীর বিনায়ক দামোদর সাভারকার ছিলেন একজন মহান বক্তা, লেখক, ইতিহাসবিদ, কবি, দার্শনিক ও সমাজকর্মী যিনি “অভিনব ভারত সোসাইটি” প্রতিষ্ঠা করেছিলেন । তিনি স্বদেশী আন্দোলনে জড়িত ছিলেন এবং “দি ইন্ডিয়ান ওয়ার অফ ইন্ডিপেনডেন্স 1857” নামে একটি বই লিখেছিলেন । তিনি মার্সাইলস হয়ে লন্ডনে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে আন্দামান সেলুলার জেলে বন্দী করা হয় ।

Aurobindo Ghosh was an Indian Civil Servant and received his education in the UK. He was prosecuted for spreading sedition through Vande Mataram, a paper that he published. Later on in his life, he migrated to French Pondicherry and set up a centre there.

অরবিন্দ ঘোষ একজন ইন্ডিয়ান সিভিল সারভেন্ট ছিলেন এবং তিনি উই.কে তে পড়াশোনা করেছিলেন । তার প্রত্রিকা বন্দেমাতরম প্রকাশনের মাধ্যমে বিক্ষোভ ছড়ানোর অভিযোগে তাকে অভিযুক্ত করা হয়েছিল ।পরে তিনি ফরাসি পন্ডিচেরিতে চলে যান এবং সেখানে একটি কেন্দ্র স্থাপন করেন ।

 

Ashfaqulla Khan was hanged for his involvement in the Kakori Dacoity incident. He was the first Muslim to embrace death on the gallows for his country. He worked directly under Ram Prasad Bismil and wanted to study engineering abroad but was betrayed by his friend by disclosing his whereabouts.

কাকরি ডাকাতি ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে আশফাকুল্লাকে খুন করা হয়েছে । তিনি প্রথম মুসলিম ছিলেন যাকে ফাঁসি দেওয়া হয়েছিল । তিনি সরাসরি রাম প্রসাদ বিস্মিলের অধীনে কাজ করতেন এবং বিদেশে ইঞ্জিনিয়ারিং পড়তে চেয়েছিলেন কিন্তু তার আস্তানা প্রকাশ করে তার বন্ধু তার সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করেছিল ।

KM Munshi was a lawyer, creative writer, constitution-maker, freedom fighter, administrator, organization-builder and a propagator of Indian culture. Post-independence, he served the government in various capacities.

কে এম মুন্সি একজন আইনজীবী, সৃজনশীল লেখক, সংবিধান প্রণেতা, মুক্তিযোদ্ধা, প্রশাসক, সংগঠন-নির্মাতা এবং ভারতীয় সংস্কৃতির প্রচারক ছিলেন । স্বাধীনতার পর তিনি বিভিন্ন ক্ষমতায় সরকারের সেবা করেন ।

 

Laxmi Segal was the captain of all women Rani of Jhansi regiment of INA. She was really inspired by Gandhi and Bose. She still inspires a lot of women to join the army and is regarded as the pioneer of women’s issues in the army.

লক্ষ্মী সেগাল ছিলেন অল ওমেন রানি অফ ঝাঁসি রেজিমেন্ট অফ আই.এন.এ -এর ক্যাপ্টেন । গান্ধী ও বোসের কাছ থেকে তিনি সত্যিই অনুপ্রাণিত হয়েছিলেন । সেনাবাহিনীতে যোগদানের জন্য তিনি অনেক নারীকেও অনুপ্রাণিত করেন ।

 

Rani Saroj Gaurihar hails from a well-read family, her father being a prominent lawyer who fought the court cases of various freedom fighters. She herself graduated with a degree of law and also got a diploma on Public Administration later on. After independence, she was also an MLA in Madhya Pradesh.
রানী সরোজ গৌরিহর একটি সুপ্রভাত পরিবার থেকে এসেছেন, তার পিতা একজন সুপরিচিত আইনজীবী ছিলেন যিনি বিভিন্ন মুক্তিযোদ্ধাদের হয়ে আদালতে মামলায় লড়েছিলেন । স্বাধীনতার পর, তিনি ছিলেন মধ্য প্রদেশের একজন বিধায়ক ।

 

K E Mammen was in the prison cell when Jawahar Lal Nehru gave that speech in independent India. He was moved by the radical ideas of Subhash Chandra Bose and considered Captain Laxmi as his idol.

কে.ই মাম্মেন কারাগারে ছিলেন যখন জওহরলাল নেহেরু স্বাধীন ভারতে এই বক্তৃতা দেন । তিনি সুভাষচন্দ্র বসু এর ধারনা দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়েছিল । তিনি ক্যাপ্টেন লক্ষ্মীকে তার মূর্তি হিসেবে বিবেচনা করেছেন ।

 

 

Shyam Lal Gupt was a patriotic poet who wrote the famous song “Vijaya vishwa tiranga pyara, Jhanda Uncha rahe hamara” on the commemoration day of Jayaliwalan Bagh Diwas
শ্যামল গুপ্ত একজন দেশপ্রেমিক কবি ছিলেন যিনি বিখ্যাত জালিওয়ান বাগ স্মৃতি দিবস উপলক্ষে বিখ্যাত গান “বিজয়া বিশ্ব তিরঙ্গা পয়ারা, ঝান্ডা উচ্ছচা হামার” লিখেছিলেন

More Related News From Chakdaha 24x7