Shantipuri sarees began reaching far flung regions

With the advent of Mughal Empire, weaving saree at Shantipur got due recognition and production intensified to such an extent that goods began reaching far flung regions like Afghanistan, Iran, Arabia, Greece and Turkey.
Since ancient times, Shantipur and adjoining areas are famous for looms. The unique handloom weaving styles in this region are known as Shantipuri sarees. After the partition of India, Bengal was divided into two main regions. West Bengal became a part of India and East Bengal became East Pakistan (Bangladesh). Many skilled loom artists from Dhaka have migrated to West Bengal and settled around Shantipur in Nadia district and Kalna (Ambika Kalna) of Burdwan district.
Both centers for the production of hand-made clothes sold all over the country is traditionally well-known. With the government support for the Indian handicrafts and art weaving community gradually grew and got rich. Sarees and finely woven feather-touch textiles are still being made in the same traditional manner. The samples and colors found in ancient times are still available, still reflected in garments produced in Shantipur, Phulia, Marine, Metals and Ambika Kalna’s huge textile belts. These clothes are sold through cooperatives and various commercial establishments.

শান্তিপুরের শাড়ি পৌঁছে যেত আফগানিস্তান, ইরান, আরব, গ্রীস এবং তুরস্কের মত দূরের অঞ্চলে

মুগল সাম্রাজ্যের আবির্ভাবের পর, শান্তিপুর শাড়ি তৈরির কারণে যথাযথ স্বীকৃতি লাভ করে এবং উৎপাদন এত পরিমাণে বৃদ্ধি পায় যে পণ্যগুলি আফগানিস্তান, ইরান, আরব, গ্রীস এবং তুরস্কের মত দূরের অঞ্চলে পৌঁছানোর জন্য কাজ শুরু হয়েছিল ।
প্রাচীন কাল থেকে, শান্তিপুরএবং আশেপাশের অঞ্চল তাঁতের শাড়ি জন্য বিখ্যাত ।

এই অঞ্চলে অনন্য হ্যান্ডলুম বয়ন শৈলীগুলি শান্তিপুরী শাড়ি নামে পরিচিত । ভারত বিভাগের পর বাংলাকে দুটি প্রধান অঞ্চলে বিভক্ত করা হয় । পশ্চিমবঙ্গ ভারতের একটি অংশ হয়ে ওঠে এবং পূর্ববাংলা পূর্ব পাকিস্তান (বাংলাদেশ) হয়ে ওঠে । ঢাকা থেকে বর্তমানের অনেক দক্ষ তাঁত শিল্পী পশ্চিমবঙ্গে স্থানান্তরিত হয়ে নদীয়া জেলার শান্তিপুর ও বর্ধমান জেলার কালনা (অম্বিকা কালনা) এর চারপাশে বসতি স্থাপন করে ।
সারা দেশে বিক্রি করা হাতে -বোনা কাপড় উৎপাদনের জন্য উভয়ই প্রথাগতভাবে বিখ্যাত কেন্দ্র । ভারতীয় হস্তশিল্প ও শিল্পের জন্য সরকারি সহায়তায় বয়ন সম্প্রদায় ধীরে ধীরে বেড়ে ওঠে এবং সমৃদ্ধ লাভ করে । শাড়ি এবং সুতি কাপড় দ্বারা নির্মিত ফেদার টাচ বস্ত্র এখনও একই ঐতিহ্যগত পদ্ধতিতে তৈরি হচ্ছে। প্রাচীনকালে পাওয়া নমুনা ও রংগুলি এখনও পাওয়া যায়, এখনও শান্তপুর, ফুলিয়া, সমুদ্রগড়, ধাতরিগ্রাম এবং অম্বিকা কালনা এর বিশাল টেক্সটাইল বেল্টে উৎপাদিত গার্মেন্টসগুলিতে প্রতিফলিত হয় । এই বস্ত্রগুলি সমবায় ও বিভিন্ন বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানগুলির মাধ্যমে বিক্রি করা হয় ।

More Related News From Chakdaha 24x7