Story behind The Golden Temple Amritsar

Sri Harmandir Sahib also known as Sri Darbar Sahib or Golden Temple. The Sikhs, all over the world, wish to visit Sri Amritsar daily and worship Sri Harmandir Sahib .

Guru Arjan Sahib, the Fifth Nanak, conceived the idea of creating a central place of worship for the Sikhs and he himself designed the architecture of Sri Harmandir Sahib. Earlier the planning to excavate the holy tank (Amritsar or Amrit Sarovar) was chalked out by Guru Amardas Sahib, the Third Nanak, but it was executed by Guru Ramdas Sahib under the supervision of Baba Budha ji
For the Swarna Mandir, the land was acquired from the village zamindar on payment or free of cost. Construction of the temple started in 1570 .
The Hindu temple has only one gate for the entrance and exit , but the Guru Arjan Sahib kept the temple open from all sides. Thus he made a new faith, a symbol of Sikh religion. This temple was open for everyone regardless of caste, religion, women and men. In 1604, the construction work of the temple was completed in August and September. Guru Arjuna Sahib wrote books ” Granth Sahib” and appointed Buddha Ji as the first Reader .

Sri Harmandir Sahib, is built on a 67ft. square platform in the centre of the Sarovar(tank). The temple itself is 40.5ft. square. It has a door each on the East, West, North and South. The Darshani Deori (an arch) stands at the shore end of the causeway. The door frame of the arch is about 10ft in height and 8ft 6inches in breath. The door panes are decorated with artistic style. It opens on to the causeway or bridge that leads to the main building of Sri Harmandir Sahib. It is 202 feet in length and 21 feet in width.

The bridge is connected with the 13 feet wide ‘Pardakshna’ (circumambulatory path). It runs round the main shrine and it leads to the ‘Har ki Paure’ (steps of God). On the first floor of “Har Ki Pauri“, there is continuous reading of Guru Granth Sahib.

The main structure of Sri Harmandir Sahib, functionally as well as technically is a three-storied one. The front, which faces the bridge, is decorated with repeated cusped arches and the roof of the first floor is at the height of the 26 feet and 9 inches.

At the top of the first floor 4 feet high parapet rises on all the sides which has also four ‘Mamtees’ on the four corners and exactly on the top of the central hall of the main sanctuary rises the third story. It is a small square room and have three gates. A regular recitation of Guru Granth Sahib is also held there.

On the top of this room stands the low fluted ‘Gumbaz’(dome) having lotus petal motif in relief at the base inverted lotus at the top which supports the “Kalash” having a beautiful “Chhatri” at the end.

Its architecture represents a unique harmony between the Muslims and the Hindus way of construction work and this is considered the best architectural specimens of the world. It is often q

 অমৃতসরের স্বর্ণমন্দির নির্মানের ইতিহাস

শ্রী হরমন্দির সাহেব, শ্রী দরবার সাহেব বা গোল্ডেন টেম্পল নামেও পরিচিত। সারা বিশ্ব জুড়ে শিখরা, প্রতিদিন শ্রী অমৃতসর ভ্রমণের জন্য এবং শ্রী অর্মাসে শ্রী হারমন্দির সাহেবের উপাসনা করতে আসেন ।

পঞ্চম নানক, গুরু আর্জন সাহেব, শিখদের জন্য উপাসনার কেন্দ্রস্থল নির্মাণের ধারণাটি ধারণ করেছিলেন এবং তিনি স্বয়ং শ্রী হরমন্দির সাহেবের স্থাপত্য নকশা করেছিলেন। প্রথমে অমৃতসর সরবর তৈরি করার পরিকল্পনা করেছিলেন তৃতীয় নানক গুরু অমরদাস তবে কাজটি সম্পাদিত করেছিল গুরু রামদাস সাহেব ।
স্বর্ন মন্দির-এর জন্য জমি গ্রামের জমিদার-এর কাছ থেকে মূল্য দিয়ে অথবা বিনা মূল্যে অর্জন করা হয়েছিল । মন্দিরটির নির্মাণ কাজ 1570 খ্রিস্টাব্দে শুরু হয় ।
হিন্দু মন্দিরের প্রবেশদ্বার ও প্রস্থানের জন্য একমাত্র প্রবেশদ্বার ছিল , তবে গুরু আর্জন সাহেব মন্দিরটি চারদিক থেকে খোলা রাখলেন ।এইভাবে তিনি নতুন বিশ্বাস, শিখ ধর্মের একটি প্রতীক তৈরি করেন । জাত , ধর্ম , নারী ও পুরুষ নির্বিশেষে প্রত্যেকের জন্য এই মন্দির উন্মুক্ত ছিল । ১৬০৪ সালে আগষ্ট , সেপ্টেম্বর মাসে মন্দিরটি নির্মানের কাজ সমূর্ণ হয় । গুরু অর্জুণ সাহেব রচনা করলেন গ্রন্থসাহেব এবং বাবা বুধা জি কে প্রথম গ্রন্থি হিসাবে নিযুক্ত করেছিলেন । শ্রীহরমন্দির সাহেব বা স্বর্ণমন্দির সরোবরের মাঝখানে ৬৭ বর্গ কিলোমিটার জায়গা জুড়ে অবস্থিত । মন্দির টি নিজেই ৪০.৫ বর্গ কিলোমিটার জায়গা জুড়ে অবস্থান করে আছে । মন্দিরের পূর্ব, পশ্চিম , উত্তর ও দক্ষিন চারিদিকে একটি করে দরজা আছে ।

 

More Updated News From Chakdaha 24x7